এই সংখ্যার লেখকসূচি  শ্রদ্ধাঞ্জলি নজরুল ইসলাম শৌনক দত্ত, 
সৌমিত্র চক্রবর্তী, শর্মিষ্ঠা ঘোষ, রেজা রহমান  অনুপম দাশশর্মা  
অন্যান্য কবিতা  কচি রেজা, ঈশিতা ভাদুড়ী, ইন্দ্রজিৎ মাজি, সোনালী 
বেগম, রিয়া চক্রবর্তী, সোনালী মিত্র, ইন্দ্রজিৎ চক্রবর্তী, 
সুজাতা ঘোষ, অনুপ দত্ত, শশাঙ্কশেখর পাল, দোলনচাপা ধর, 
গৌতম সেন দেবাশিস লাহা, জয় ভাদুড়ী, বিষ্ণু ঠাকুর, অঞ্জন 
বর্মন, ইন্দ্রাণী সরকার  পারোমিতা চ্যাটার্জী 

কবিতাগুলি পড়ুন সূচিপত্রে ক্লিক করে





ভুল হয়ে গেছে বিলকুল
আর সবই ভাগ হয়ে গেছে শুধু
ভাগ হয়নিকো নজরুল
এই ভুলটুকু বেঁচে থাক
বাঙালি বলতে একজনই আছে
দুর্গতি তার ঘুচে যাক

আজ ১১ই জ্যৈষ্ঠ ১৪২১,কাজী নজরুল ইসলামের ১১৭তম জন্মদিন । তাঁর জন্মদিন পালনে একটা বিভ্রান্তি আমাদের পীড়িত করে । ‘জ্যৈষ্ঠের ঝড়’ নজরুলের জন্মদিন ১১ই জ্যৈষ্ঠ । রবীন্দ্রনাথের জন্মদিন পালিত হয় ২৫শে বৈশাখ, ইংরাজি ক্যালেন্ডার অনুযায়ী ৭ই মে নয়, যদিও ১৮৬১ সনের ২৫শে বৈশাখ দিনটি ছিল ৭ই মে । আমরা কখনোই রবীন্দ্রনাথের জন্মদিন ইংরাজি ক্যালেন্ডার অনুযায়ী ৭ই মে পালন করি না । বিদ্রোহী কবির জন্মদিন পালনেও সেই রীতি মান্য হওয়া উচিৎ । কবির জন্মদিন ১১ই জ্যৈষ্ঠ । হতে পারে দিনটি ২৫শে কিংবা ২৬শে মে ।

৪টি কবিতা ও ১টি গদ্যরচনা দিয়ে  কবির প্রতি বিনম্র প্রণতি নিবেদন করলাম ।
দ্রোহ না প্রেম...

নজরুল ইসলাম বলতেই আমাদের মনে যে ছবি ফুটে ওঠে তা একজন বিদ্রোহীর কানে গুঞ্জরিত হয় দ্রোহের বাক্যবন্ধ অথচ নজরুল জড়িয়ে আছেন শ্বাশত প্রেমে! আপাত দৃষ্টিতে বুদ্ধদেব বসুর নজরুল মূল্যায়নই বাঙালীর ফুল এন্ড ফাইনাল মূল্যায়ন অন্তত আজ পর্যন্ত,বুদ্ধদেব বসু তার নজরুল মূল্যায়নের একটি জায়গায় বলেছিলেন বেরুনোর পর পরই যা জনপ্রিয় হয় কালের ইতিহাসে তা খুব কমই টিকে থাকে নজরুল যে অনেক সময় জনপ্রিয়তায় রবীবাবুকেও ছাপিয়ে গেছেন তা তার দ্রোহে নয় বরং প্রেমে বিদ্রোহী কবিতাটি সেইসময় রবীন্দ্র চাদর খুলে বেরিয়ে আসা স্বাতন্ত্র এক লেখা অবশ্যই কিন্তু তাই বলে আলগা কর খোঁপার বাঁধন গীতি কবিতাটিও গৎ বাঁধা ছিলো না নজরুলের প্রেমিক স্বত্তার বহিঃপ্রকাশ তার দ্রোহের চেয়ে বেশি সাবলীল স্বতঃস্ফুর্ত এতে সন্দেহ না থাকলেও তার দ্রোহ কেই মোটা কলমে হাইলাইট করা হয় কেন? কেন শব্দটির সন্ধান করতে গেলেই তার যাপিত জীবনের একটি বড় ছায়া যে দিক নির্দেশ করে তাতে বিদ্রোহ কিংবা দ্রোহ শব্দটি নজরুল ইসলাম কে শুধু প্রতিনিধিত্বই করেনা বরং নজরুলের জীবন সংগ্রামের যে চ্যালেঞ্জ তাকেও দর্শায় ! কিন্তু সেই দুখু মিয়া দিন শেষে যখন নজরুল, নজরুল হয়ে উঠছেন তখন বোধ করি দ্রোহ নয় প্রেম এক অমোঘ শব্দ বুদ্ধদেব বসু সেই সময়কালের যে নির্ণয় করেছিলেন তা অনেকাংশে আজ হয়ত ঠিক আমার কাছে যা ঠিক তা সবার ক্ষেত্রে না হতে পারে ধরেই নিচ্ছি, কিন্তু একটি কথা তো মনতেই হবে যে, যেকোন রাজনৈতিক কিংবা দ্রোহের কবিতা কালের বিবর্তনে দৃঢ় উচ্চারণ হারায় নজরুলের বিদ্রোহী উচ্চারণ কালের নিয়মেই হয়ত কিছুটা ফিকে হয়েছে কিন্তু তার প্রেম আজো প্রেমের মতোই শ্বাশত অমর বরং এই ক্ষেত্রে বুদ্ধদেব বিফল বক্তা ! (যদিও বুদ্ধদেবে বসুর মূল্যায়ণ ছিলো সামগ্রিক নজরুল)




About