গীতবিতানে সহবাস 

আমার সাথে তোমার প্রথম পরিচয়-
সহজ পাঠের হাত ধরে,
সরল মনের অনাবিল আনন্দে -
আমি চলেছিলাম, কুমোর পাড়ার গরুর গাড়ি চড়ে -
কখনো ব্যাঙ্গমা ব্যাঙ্গমির দেশে,
কখনো বা তেপান্তরের মাঠে।

তারপর কত কি হয়ে গেল
কত সন্ধ্যায় ঠাকুর ঘরে তোমার ছবি খুঁজেছি
জিজ্ঞাসাও করেছি কতজনে
সদুত্তর পাইনি।

এরপর তুমি ধরিয়ে দিলে সঞ্চয়িতা,
পাড়ার জলসায় ভরে গেলাম প্রশংসায়
সে তো তোমারই জন্য।

একে একে ছুঁয়ে দেখা শুরু হল-
গল্পগুচ্ছ, ঘরে-বাইরে, গোরা, রক্তকরবী-
তারপর সে কী নেশা-
নেশার ঘোরে বুঁদ হয়ে থাকতাম
চোখের বালি,চতুরঙ্গ ইত্যাদি নিয়ে।

এভাবে নেশার ঘোরে একদিন
গীতবিতানের সঙ্গে সহবাস ঘটে গেল।
সেদিন মাথায় ভুত চাপল
এবার তোমার সব কিছু আমায় উজাড় করে দিতেই হবে।
তোমার যা কিছু ,সব নিঃশেষ করে নেব
লহমার পর লহমায়।
ভুল ভাঙল তারপর
সেই সহবাস আজও চলছে
সুখে, দুঃখে আর্তিতে, ভালবাসায়
প্রতিদিন তুমি নব নব রূপে, রঙ এ
ধরা দিয়ে চলেছ ,তোমায় নিঃশেষ করতে পারিনি ।

না! ছোটবেলা থেকে যেভাবে তোমাকে
আমি নিংড়ে নিয়েছি বলে ভেবেছিলাম
আসলে তা নয়।

দিনের পর দিন তুমিই আমাকে নিংড়ে নিয়েছ
আমার শৈশব, কৈশোর, যৌবন- বিভিন্ন সত্তাকে,
তাইতো তোমায় ছাড়া আমার
প্রতিটি মুহূর্ত স্থবির, নিষ্প্রাণ ।

আজ তাই তোমায় আর
ঠাকুর ঘরে খুঁজি না
কারণ তুমি আমার মনের মণিকোঠায়
রক্ত-মাংসের জীবন্ত কিংবদন্তী-
আমার প্রেম,আমার রবীন্দ্রনাথ ।।


0 মন্তব্য(গুলি):

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

About