২৫শে বৈশাখ

 যেমন করে সূর্য ওঠে নতুন ভোরে,
যেমন করে বলতে পারি আপন করে -
আমার সাধের দোলোনচাঁপা, আছিস কেমন?
শরীর কি তোর ভিজিয়ে দিলো অকাল শ্রাবন?
তেমনি করে, রাতের আকাশ প্রদীপ জ্বেলে...
তেমনি করে, আমের বনে মুকুল এলে,
প্রথম আলোয় আবেশে লাগে, সেই আবেশে
পাই যেন কার ডাক!
মনের কোণে অন্ধকারে, বন্ধ ঘরে,
ডাক দিয়ে যায় '২৫শে বৈশাখ'

আমি তখন  চিলতে ঘরে রোদ মেখেছি!
আমি তখন বটের ছায়ে গান বেধেছি!
কান পেতেছি হিজল বনে, নদীর ধারে,
রাখাল কখন বাজায় বাঁশি? কোন আঁধারে
চাঁদের লোভে গন্ধে ডোবে আধ-ফোঁটা জুঁই?
আরেকটু ছুঁই? একটু না হয় বসলে কাছে।
তোমার মনে  গোপন কোনো শব্দ আছে?
এমন কোনো টাপুর টুপুর বর্ষা রাতে, 
মেঘ-পাহাড়ে আবছায়াতে, বৃষ্টি ফোঁটায়
পাই যেন কার ডাক?
অরণ্যের এই উৎসবেতে, বছর বছর,
ডাক দিয়ে যায় '২৫শে বৈশাখ'

অন্ধ আমি একলা বসে বন্ধ ঘরে।
বাইরে দেখি রবির আলোর ঝর্ণা-ধারা,
আমার ঘরে অঝোর ঝরে বৃষ্টি পড়ে,
বাইরে বাতাস আনন্দতে আত্মহারা...
একটু যদি নতুন করে ঘুমের ঘোরে,
ভালোবাসার স্বপ্ন দেখি? ভুল হবে কি?
'লোই যদি,কেমন করে বোঝাই তোরে,
তোর দু-হাতে দিলাম তুলে আমার দু-হাত।
হয়ত সেদিন দুরন্ত এক পূর্ণিমা রাত,
হয়ত সেদিন খানিক দ্বিধায় সরিয়ে নিলে
তোমার দু-হাত, ফিরিয়ে দিলে চোখের বালি!
অন্ধকারে দেখছি আলোর ঝর্ণা ধারা,
তোমার সুরেই এবার তবে প্রদীপ জ্বালি?
তোমার যত বিচিত্র সাধ বৃষ্টি হ'য়ে
আমায় সকল রুদ্ধ দ্বারে ডাক দিয়ে যায়
ঘরের কোণে ছড়িয়ে  আছে মুক্ত-ধারা।
সেই আলোতে দিগন্ত-নীল নতুন সকাল...
সেই আলোতে একাল-ওকাল, হলদে তিতির
দিচ্ছে যেন ডাক!
মনের কোণে, মঞ্জরীতে দক্ষিন হাওয়ায়
দোল দিয়ে যায় ২৫শে বৈশাখ।



0 মন্তব্য(গুলি):

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

About