কথোপকথন

এত সকাল সকাল যে নন্দিনী ?
-        জানো শুভঙ্কর, কাল রাত্তিরে মনে মনে একটা ছবি আঁকলাম।
-    বেশ তো কী আঁকলে শুনি ?
-    অন্ধকার ঘর। ঘরের মাঝখানে চেয়ারে আধশোয়া একটা মানুষ।
আর তার সামনে খোলা দরজার ওপারে রোদ্দুর।
-    রোদ্দুরই আঁকলে যদি, তবে অন্ধকার আর রইল কোথায় ?
একটু হলেও কি আলো ঢুকছিল না সেই ঘরে?
-    ঢুকছিলই তো। আর অমনি মানুষটা উঠে গিয়ে দরজাটা বন্ধ করে আবার
অন্ধকারে এসে বসল।  দরজা দিয়ে নাকি ঠান্ডা হাওয়া আসছিল !
-    ছবিটার নাম কী রাখলে তারপর ?
-    ঘরটার নাম রাখলাম,‘সমাজ আর ওই দরজাটার নাম, ‘সংস্কার
বাইরের রোদ্দুরের নাম,‘মুক্তি কিন্তু ছবিটার নাম রাখতে পারলাম না।
-    নন্দিনী,তাহলে নাম দাওআশা
-    ওই অন্ধকার ঘরে আশা কোথায় দেখলে শুভঙ্কর? ঠান্ডার ভয়ে যে
আলোকেও ঘরে ঢুকতে দেয় না,তার জীবনে আশা কোথায় ?
-    কেন! দরজার বাইরে যতক্ষণ আলো রয়েছে। ঠান্ডা কমে আসবে একদিন।
রোদ্দুর তো থাকবেই, তাই না?

0 মন্তব্য(গুলি):

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

About