বক্ষপিঞ্জর

এখানে শুকনো ক্ষেতে ধুসর মেঘলা দুপুরে মগ্ন আছি
নষ্ট দেবতা এসে সন্তানের হাত ধরে শ্যাওলা পৃথিবীতে
মায়াময় প্রতিবিম্বে নিজেকে দেখি । আমার ঠিক পিছনে
দাঁড়িয়ে আছে অস্থির বালক , যে লিখবে সঠিক সংলাপ
বনজ্যোৎস্নায় তুমি কি ওকে আশ্রয় দিয়েছ হে বক্ষপিঞ্জর !
জায়মান ভবিষ্যতের পাঁচালি
দেবাশিস কোনার
মিলে মিশে পাক হয়ে যাচ্ছে সব । তালগোল পাকানো
এক এক করে অনেক । এক থেকেই তো সহস্র ।
তবু বলছ ভয় দেখানো ? ক্ষয় মনের গভীরে বাসা করেছে
তৃষ্ণা অরোপিত বকচ্ছপ গুণগান ------ নির্বাচিত প্রতিনিধি
জায়মান দৃশ্যত মূক। কথা বলতেই জানে না । যদি বা বলে
মনে মনে ভাবে হারানো পৃথিবীতে আবার কি দেখা হবে ?
চণ্ডালের তাড়ি পান । অজস্র সূর্যের ছটায় বিলকুল ডুবে থাকা ।
আর আমায় মারিস নে মা ! প্রচ্ছন্ন শপে দেওয়া অনন্তের কাছে
কিছু থাকবে না । গাছে ফুল এবং মান - অপমান । তবু ----
ভাসতে ভাসতে ঠিক একদিন চিতার কাঠ হতে চাওয়া কেন ?
তন্তুতে তন্তুতে বুনন । কঠিন কাদম্বিনী ফুঁড়ে টানা বৃষ্টি
প্রতিচ্ছায়া ফিরিয়ে এসো আবার মার্জিত প্রচারে


0 মন্তব্য(গুলি):

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

About