তোমাকে নিয়ে স্বপ্ন যখন


প্রিয় রবিবাবু,

আজকাল খুব স্বপ্ন আসে।
ঘুমের টুকরো গদ্যে আজকাল স্বপ্ন আসে খুব।
তোমার আমার। এমনকি আমাদের।
স্বীকারোক্তির কাঁচা-পাকা উৎসব। মহোৎসবের।  
প্রকৃত অপ্রাকৃত শোরগোলগুলি জ্বলজ্বল করে।
গানের নক্ষত্র ছড়ায়। স্বপ্নেই। সুড়ঙ্গ মেলে ধরে পাহাড়চুড়া।
শ্বরবর্ণ আর ব্যাঞ্জন বর্ণের বিয়েশাদি হয়। আমি আর তুমি বিবাহের।
চোখ বেঁধে। বাগাডুলি খেলা করি। স্বপ্নেই। ফোয়ারার মতো কিছু মন্ত্র আমাদের।
শরীর বেয়ে নিচে নামে। মূর্তির পর মূর্তি। কবিতার জলনদীর কাঠামো তৈরি হয় আর
কাঠামোর ভেতরে কথাকলির গরম তুষার।

ডিঙানোর মতো একটি চিঠিভাঙার দেওয়াল। এমন শব্দ কোরে পোশাক খোলে বাতাসের রোমকূপ। স্বপ্নের মধ্যেই নতুন কোরে চোখ গজায় আমাদের। ঝরনাসুত্রের সাদা পৃষ্ঠা মোটা মোটা হরফ।কম্পনের রেখা। দেখি তোমাকে যতো ততই বাড়ে চুমকির আসবাব। আশাবরির বাউল ইশারা জাগালে। প্রণয় উপচায় আমাদের। স্বপ্নেই। মৃত্যুর বুক থেকে ঝরে রক্ত।

সেই রক্তের রঙ।ঠিক যেনো।সানাইয়ের বাঁশীর মতো।স্বপ্ন দোষ কেনো হবে রবিবাবু।
স্বপ্নের এক বাটি শুভদৃষ্টি। আমাদের পরশুরাতে আঁকা শ্রেষ্ঠ রবীন্দ্রগীতি।


1 মন্তব্য(গুলি):

Soumitra Chakraborty বলেছেন...

বাঃ! সুন্দর প্রনাম।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

About